সিরিয়ালে ভয়াবহ যৌন দৃশ্য

0

বিনোদন ডেস্ক: বিবিসি-২ এর দর্শকরা যেন ভুত দেখে চমকে উঠছেন। কারণ, তাদের সামনে কোনো পূর্বাভাষ না দিয়েই ফুটে উঠলো এক পূর্ণাঙ্গ যৌন সম্পর্কের দৃশ্য। রিচার্ড গেরে’র নতুন ড্রামা সিরিয়াল ‘মাদার ফাদার সন’-এ এমন এক রগরগে দৃশ্য ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। তাতে ক্যাডেন চরিত্রে পুরো নগ্ন হয়ে সামনে এগুতে দেখা যায় অভিনেতা বিলি হাউলকে। তিনি তার ফ্লাটে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন একজন পতিতাকে। ওই পতিতা ফ্লাটে আসার পর বিলি হাউল এমন নগ্ন হয়ে এগিয়ে যান। আর তার সামনের দিকে ক্যামেরা ফোকাস করা হয়। ফলে তার শরীরের লজ্জাস্থান একদম উন্মুক্ত হয়ে ফুটে ওঠে।
এমন দৃশ্যকে ‘হরিফিক সিন’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে বৃটিশ ট্যাবলয়েড একটি পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।
এতে বলা হয়েছে, ‘মাদার ফাদার সন’ সিরিয়ালটি হলো একটি রাজনৈতিক ও মনোবিজ্ঞান সম্পর্কিত থ্রিলার। এতে একটি পরিবারের তিন সদস্যকে দেখানো হয়। তারা হলেন ম্যাক্স, ক্যাথরিন ও তাদের ৩০ বছর বয়সী ছেলে ক্যাডেন। এই ক্যাডেন চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিলি হাউল।
‘মাদার ফাদার সন’-এ এমন দৃশ্য আছে এটা আগে থেকে নোটিশ বা সতর্ক করা হয় নি। তাই যখনই টেলিভিশনের পর্দায় এই দৃশ্য ভেসে ওঠে তখন এর দর্শকরা প্রার্থনা করতে থাকেন যাতে বিদ্যুত চলে যায়। তাদেরকে বাধ্য করা হয়েছে এ দৃশ্য দেখতে। এতে বিব্রত হয়ে পড়েন অনেক পিতামাতা। কারণ, তারা তাদের সন্তানদের নিয়ে দেখছিলেন তা।
দর্শকরা বলেছেন, ‘মাদার ফাদার সন’-এর এই পর্বে যে ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে তা শক্তিশালী। এতে আছে যৌন প্রকৃতির দৃশ্য। তার মধ্যেই ফুটে ওঠে বিলি হাউলের ওই দৃশ্য। তাতে তিনি ভাড়া করা পতিতার সঙ্গে যে সংলাপ বলেন, মনে হয় তুমি যৌনতা, তোমার শরীর অথবা আমার সম্পর্কে কিছুই জানো না। এ কথা বলেই তিনি পুরো নগ্ন হয়ে পড়েন।
একজন দর্শক বলেছেন, কি দেখছি। ‘মাদার ফাদার সন’ দেখছি আমার মার সঙ্গে। এরই মধ্যে এতে দেখানো হচ্ছে অত্যন্ত রগরগে যৌন দৃশ্য। প্রার্থনা করছি বিদ্যুত চলে যায় যেন।
আরেকজন দর্শক বলেছেন, জীবনে আমি খুব কমই বেদনাবোধ করেছি। কিন্তু মা-বাবার সঙ্গে বসে দেখছিলাম ‘মাদার ফাদার সন’। এতে এমন ভয়াবহ যৌন দৃশ্য থাকবে সে বিষয়ে বিবিসি থেকে সতর্কতা দেয়া হয় নি। ফলে এমন দৃশ্য আমার জীবনে শীর্ষ বেদনাবোধ হিসেবে থেকে যাবে।
আরেকজন দর্শক বেদনা প্রকাশ করেন এভাবে- নিজের প্রতি নোট। আর কখনো বড়দের সঙ্গে নিয়ে ‘মাদার ফাদার সন’ দেখবো না।
উল্লেখ্য, ‘মাদার ফাদার সন’-এর প্রথম পর্ব প্রচারিত হয় এ বছর ৬ই মার্চ স্থানীয় সময় রাত ৯টায় বিবিসি টু’তে। তার পর থেকে প্রতি বুধবার একই সময়ে তা প্রচারিত হচ্ছে। গত গ্রীষ্মে এ সিরিয়ালটি ধারণ করা হয়েছে লন্ডন ও স্পেনের বিভিন্ন স্থানে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.